Home / National / ঝুলন্ত লাশের নিচে পড়ে ছিল গর্ভপাত হওয়া ৮ মাসের নবজাতক” বিস্তারিত ভিতরে “

ঝুলন্ত লাশের নিচে পড়ে ছিল গর্ভপাত হওয়া ৮ মাসের নবজাতক” বিস্তারিত ভিতরে “

Binodontimes: ঘরে ফাঁসে ঝুলছিল প্রেমের সম্পর্কের জেরে পরিবারের সবাইকে ফাঁকি দিয়ে বিয়ে করা সীমার লাশ। আর লাশের নিচে পড়ে ছিল আট মাসের গর্ভপাতের নবজাতকটি। ঢাকার উত্তর বাড্ডা এলাকায় ভাড়া বাসা ভাটারা থানা পুলিশ সীমার ও ভূমিষ্ঠ নবজাতকের লাশ উদ্ধার করে।

ফেনীর সোনাগাজীতে গত বছরের ৪ মে ১০ রমজান পরিবারের সবাইকে ফাঁকি দিয়ে প্রেমের সম্পর্কের জেরে পাশের এলাকার আকাশের সঙ্গে ঘর বেঁধেছিলেন সীমা। আর চলতি বছরের ২৯ মে ১৬ রমজান লাশ হয়ে বাবার বাড়ি আসলেন তিনি।

সীমা আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। তার ঝুলন্ত লাশের নিচেই পড়ে ছিল গর্ভের সন্তানের লাশ। ময়নাতদন্ত শেষে শুক্রবার রাতে গ্রামের বাড়িতে সীমার লাশ দাফন করা হয়।

সীমা সোনাগাজী উপজেলার চরমজলিশপুর ইউনিয়নের চরগোপালগাঁও গ্রামের ইতালি প্রবাসী মো.ইব্রাহীমের মেয়ে। তার স্বামী বগাদানা ইউনিয়নের মৃত ওবায়দুল হকের ছোট ছেলে আবদুল্লাহ আল মাহমুদ আকাশ। তাকে বৃহস্পতিবার রাতেই পুলিশ গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠিয়েছে।

নিহতের পরিবার জানায়, এক বছর আগে আকাশের সাথে প্রেমের সম্পর্কের জের ধরে পালিয়ে বিয়ে করে জয়নাল হাজারী কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী সীমা। এরপর থেকে তারা ঢাকা ও চট্টগ্রামের বিভিন্ন ভাড়া বাসায় থাকতো।

বৃহস্পতিবার রাতে আকাশের মোবাইল থেকে সীমার বাবাকে ফোন করে জানানো হয় তার মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। ঢাকার উত্তর বাড্ডা এলাকায় ভাড়া বাসায় তার মরদেহ আছে।

খবর পেয়ে সীমার বাবা ইব্রাহীম ওই বাসায় গিয়ে জানতে পারেন ভাটরা থানার পুলিশ তার কন্যা ও ভূমিষ্ঠ নবজাতকে লাশ উদ্ধার করে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে শুক্রবার রাতে গ্রামের বাড়িতে দাফন করা হয়।

সীমার বাবা মো. ইব্রাহীম বলেন, আমার মেয়ে আত্মহত্যা করেনি। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। এ বিষয়ে আমি ঢাকার ভাটারা থানায় আকাশকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছি। আমি আমার মেয়ে হত্যার বিচার চাই।

আরও একটি নিউজ পড়ুন,,,,,,

স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করায় প্রথম স্ত্রীর বিসর্জন

পাবনার সুজানগরে স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করায় মোছা. জোসনা বেগম (৪২) নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার সকাল ৭টার দিকে স্বামীর বাড়িতে আড়ার সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

জোসনা বেগম উপজেলার রাইপুর (মাছপাড়া) গ্রামের মো.আজিজ শেখের স্ত্রী।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, স্বামী আব্দুল আজিজ প্রথম স্ত্রীর সম্মতি ছাড়াই দ্বিতীয় বিয়ে করেন। রোববার দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিজ বাড়িতে নিয়ে আসেন। এ ঘটনায় স্বামীর সঙ্গে প্রথম স্ত্রীর মনোমালিন্য হয়। এরই জেরে রাতের কোনো এক সময় তিনি ফাঁস নেন। পরে সোমবার সকালে ঘরের আড়ার সঙ্গে ৫ সন্তানের জননী জোসনা খাতুনের ঝুলন্ত লাশ দেখে বাড়ির লোকজন পুলিশকে খবর দেন।

সুজানগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

About admin2

Check Also

সরকারি গাড়ি চু’রি, দুর্ঘ’টনায় পড়ে পালালো চো’র

অর্ধকোটি টাকা মূল্যের সরকারি গাড়ি চু’রি করে পালানোর সময় পথে দুর্ঘট’নার কবলে পড়ে দুমড়ে-মুছড়ে যায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *