Home / Uncategorized / ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ম্যাচ নিয়ে আবারও সংঘর্ষ, আহত ৫

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ম্যাচ নিয়ে আবারও সংঘর্ষ, আহত ৫

Binodontimes: কোপা আমেরিকার ফাইনাল ম্যাচকে কেন্দ্র করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় উত্তেজনা ও সংঘর্ষের আশঙ্কায় গত ১১ জুলাই স্থানীয় প্রশাসন সেখানে পুলিশ মোতায়েন করে।

প্রশাসনের সতর্কতায় কোনও প্রকার সংঘাত ছাড়াই দিনটি কাটে ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসীর। অবশেষে সেই ফাইনালকে ঘিরেই আবার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। নতুন করে সেই সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাতে দুই দলের সমর্থকদের মধ্যে তর্কাতর্কি ও হাতাহাতির রেশ ধরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার মাছিহাতা ইউনিয়নের খেওয়াই গ্রামে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় মিনার মিয়া, মো. আলম, রবিউল, জালাল মুন্সি ও ফুরকান মুন্সি নামে পাঁচজন আহত হন। তাদের মধ্যে মিনার মিয়াকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এর আগে কোপার ফাইনালকে ঘিরে ব্যাপক সংঘর্ষের আশঙ্কা দেখা দেয়। তাই ফাইনাল খেলাকে কেন্দ্র করে সেদিন ভোর ৫টা থেকে মাঠে পুলিশ মোতায়েন ছিল। সেই সঙ্গে পুলিশের পক্ষ থেকে জনগণকে বাইরে বের না হয়ে নিজের বাসায় খেলা দেখার নির্দেশনা দেয়া হয়।

পুলিশের তৎপরতায় ফাইনালকে কেন্দ্র করে সেদিন কোনো সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেনি। কিন্তু সেই উত্তেজনা যে এখনো কমেনি তা মাছিহাতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আল আমিনুল হক পাভেল কথায় অনুমেয়। তিনি সংঘর্ষের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,

গতকাল সন্ধ্যায় ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার মধ্যকার ফাইনাল নিয়ে খেওয়াই গ্রামের সর্দার বাড়ির শিপন (১৯) ও মুন্সি বাড়ির হৃদয়ের (১৮) বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। হৃদয় আর্জেন্টিনা এবং শিপন ব্রাজিল দলের সমর্থক। এ ঘটনার জেরে রাত ৮টার দিকে উভয়পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। খবর পেয়ে সকালে এলাকায় পুলিশ আসে। তবে এলাকার পরিস্থিতি শান্ত আছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ এমরানুল ইসলাম জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় কোনো লিখিত অভিযোগ এখনও পাওয়া যায়নি। তবে কোনো অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

About admin

Check Also

অন’লাইনে শুক্রাণু কিনে ‘ই-বেবি’ জন্ম দিলেন নারী

দ্বিতীয় সন্তান নিতে আগ্রহী হন এক ব্রিটিশ নারী। কিন্তু ৩৩ বছর বয়সী স্টেফনি টেলর নতুন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *