Breaking News
Home / National / রিক্সা চালককে মারধরের জের, সিলেটে দুই গ্রামের সংঘর্ঘ, গুলি

রিক্সা চালককে মারধরের জের, সিলেটে দুই গ্রামের সংঘর্ঘ, গুলি

Binodontimes: সিলেটের গোয়াইনঘাটে এক রিক্সা চালককে মারধরের জের ধরে দুই গ্রামের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। সংঘর্ষে জড়ানোর জন্য উভয় গ্রামের কয়েক শ’ লোক মুখোমুখি হলে পুলিশ ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

তবে এখনো দুই গ্রামের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে বলে জানা গেছে। রবিবার (২৭ জুন) সকালে গোয়াইনঘাট উপজেলার গোয়াইন গ্রামের পশ্চিম মসজিদ সংলগ্ন মাঠে গোয়াইন ও সতি গ্রামের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষের এই প্রস্তুতি চলছিল।

জানা গেছে, গত শনিবার (২৬জুন) রাত সাড়ে ৮টার দিকে গোয়াইনঘাট উপজেলার লেঙ্গুড়া ইউনিয়নের সতি গ্রামের মনির উদ্দিনের ছেলে রিকশা চালক হারুন রশিদকে গোয়াইন বাজারে পশ্চিম জাফলং ইউনিয়নের গোয়াইন গ্রামের এর এক লোক মারধর করেন।

এর জের ধরে রবিবার ( ২৭ জুন) সকালে সতি গ্রামের কয়েকশ’ লোক দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে গোয়াইন গ্রামের পশ্চিম মসজিদ সংলগ্ন মাঠে অবস্থান নেয়। খবর পেয়ে গোয়াইন গ্রামের শতাধিক লোকজনও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ওই মাঠে যান। উভয় পক্ষ মুখোমুখি অবস্থান নিলে সংঘর্ষের আশঙ্কা তৈরি হয়।

খবর পেয়ে গোয়াইনঘাট থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থি হয়ে প্রথমে উভয় পক্ষকে নিজ নিজ গ্রামে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানায়। কিন্তু তাতে কাজ না হওয়ায় পুলিশ ৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে উভয় পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

তবে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দুপুর ১২টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত উভয় গ্রামের লোকজন নিজ নিজ গ্রামে সংঘর্ষের প্রস্তুতি নিয়ে আছেন।

এব্যাপারে গোয়াইনঘাট সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার প্রবাস কুমার সিংহ বলেন, তুচ্ছ একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে গোয়াইনঘাটের সতি গ্রাম ও গোয়াইন গ্রামের মধ্যে সংঘর্ষ ঘটতে যাচ্ছিল।

খবর পেয়ে থানার ওসি আবদুল আহাদ একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন ও সংঘর্ষ রোধ করতে সক্ষম হন। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে পুলিশকে ৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়তে হয়েছে।

About admin

Check Also

বাতিলের তালিকায় ২১০টি সংবাদপত্র

দেশের ২১০টি সংবাদপত্র বাতিলের তালিকায় রয়েছে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *