Home / Uncategorized / মহম্ম’দপুরে মসজিদের মধ্যে ঢুকে কু’পিয়ে জ’খম পরে মৃ’ত্যু

মহম্ম’দপুরে মসজিদের মধ্যে ঢুকে কু’পিয়ে জ’খম পরে মৃ’ত্যু

সারাদেশ: মাগুরার মহম্ম’দপুর উপজে’লার পলা’শবাড়ী ইউনিয়নের পলা’শবাড়ীয়া গ্রামের উত্তর-পূর্ব পাড়া মসজিদের ভিতরে পূর্ব বি’রোধের জের ধরে আলাউদ্দিন ওরফে (পাখি মাস্টার) (৫৫) নামের এক স্কুল শিক্ষককে মসজিদের মধ্য পি’টিয়ে খু’ন করেছে প্রতিপক্ষোরা। ১৯ জুন শনিবার, বিকালে এ ঘটনাটি ঘটে। নি’হত স্কুল শিক্ষক ঔ এলাকার মৃ’ত আব্দুল হক মোল্যার ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঘটনার দিন বিকেল পাঁচটার দিকে আসরের নামাজ পড়ার জন্য মসজিদে যায় ঔ স্কুল শিক্ষক। টিক একই সময়ে মসজিদে প্রবেশ করেন ওই গ্রামের মৃ’ত ইসরাফিল মোল্লার ছেলে রবিউল মোল্লা এবং মৃ’ত মুন্নাফ মোল্লার ছেলে বাঁশি মোল্লা। এ সময় নামাজে দাঁড়ানোর মুহূর্তে পাখি মাস্টারকে পিছন থেকে জাপটে ধরে মসজিদের ভিতরে বে’ধড়ক মারধোর কু’পিয়ে জ’খম করে।

পরে তার চি’ৎকার শুনে মসজিদের অন্য মুসল্লিরা এগিয়ে আসলে ঘা’তক রবিউল মোল্লা ও বাসি মোল্লা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোক জন তাকে উ’দ্ধার করে মহম্মপুর উপজে’লা স্বা’স্থ্য কমপ্লেক্স এ নিয়ে গেলে তার অবস্থার অ’বনতি হলে তাকে রেফার্ড করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে নিয়ে যাওয়ার কিছু সময় পরে চিকিৎসারত অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রাত ১১ টার দিকে তার মৃ’ত্যু হয়। মৃ’ত্যুর বি’ষয়টি নি’হতের পরিবার নিশ্চিত করছেন।

নিতহ আলাউদ্দিন ওরফে (পাখি মাস্টার) পলা’শবাড়িয়া উত্তর-পূর্ব পাড়া স’রকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।
এ বি’ষয়ে মহম্মপুর থানার ত’দন্ত অফিসার মামুন হোসেন বিশ্বাস জানান, ঘটনাটি তারা জানতে পেরে পুলিশ পাঠিয়েছে। এলাকার পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক আছে। গ্রামে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

কি কারনে এমন ঘটনা ঘটেছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, একটি পুকুরের পাড় বা’ধা (চালা ) নিয়ে কিছু দিন আগে রবিউরের সাথে বি’রোধ বাধে। এরই সূত্র ধরে এমনটি হতে পারে বলে প্রাথমিক ভাবে ধরনা করা হচ্ছে। এ ঘটনার বি’ষয়ে পরিবারের অ’ভিযোগের ভিত্তিত মা’মলা দা’য়ের হবে বলে জানান তিনি।

About admin

Check Also

অন’লাইনে শুক্রাণু কিনে ‘ই-বেবি’ জন্ম দিলেন নারী

দ্বিতীয় সন্তান নিতে আগ্রহী হন এক ব্রিটিশ নারী। কিন্তু ৩৩ বছর বয়সী স্টেফনি টেলর নতুন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *