Home / Uncategorized / ইউরোপ, আমেরিকা বা দুবাইয়ে নয়, এটি ফরিদপুরের ভাঙ্গায় ‘বিস্তারিত ভিতরে’

ইউরোপ, আমেরিকা বা দুবাইয়ে নয়, এটি ফরিদপুরের ভাঙ্গায় ‘বিস্তারিত ভিতরে’

Binodontimes: দূর আকাশ থেকে দেখলে মনে হয় সবুজ ক্যান”ভাসে আঁকা বৃহৎ একটি সাদা ফুল। সেই ফুলের পাপ’ড়ির ওপর দিয়ে হেঁটে বেড়াচ্ছে বিভিন্ন প্রাণী।

একটু কাছে এলেই স্পষ্ট হয়, এটি একটি সড়ক মোড়। যেখানে চক্রা”কারে ছড়িয়ে থাকা মসৃণ সড়ক”গুলো দিয়ে সাঁই সাঁই করে ধেয়ে চলছে গাড়ি।

সেই চলন্ত গাড়ির ওপর দিয়ে আবার এঁকেবেঁকে বিভিন্ন দিকে নেমে গেছে একাধিক সড়ক। রাতের বেলায় সড়ক’বাতি’গুলো জ্বলে উঠলে সৃষ্টি হয় ভিন্ন এক নয়না”ভিরাম দৃশ্যের।

আধুনিক স্থাপত্যক’র্মের এই নিদর্শনটি ইউরোপ, আমেরিকা বা দুবাইয়ে নয়, গড়ে উঠেছে ফরিদ”পুর জেলার গ্রামীণ জনপদ ভাঙ্গায়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অন্যতম অগ্রাধিকার পদ্মা সেতু প্রকল্পের অংশ হিসেবে এরই মধ্যে দেশের প্রথম এক্সপ্রেসও”য়ের নান্দনিক এই সড়ক মোড়টি ব্যবহারের সুবিধা

পাচ্ছে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চ”লের ২১ জেলার মানুষ। পদ্মা সেতু চালু হলে এই মোড় ব্যবহার করে জেলাগুলো সরাসরি যুক্ত হবে রাজধানীর সঙ্গে। এতে সংযোগ সৃষ্টি হবে

দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চ”লের অর্থনী”তির প্রাণকেন্দ্র মোংলা, পায়রা ও বেনাপোল বন্দরের। সড়কের পাশাপাশি তৈরি হবে রেল যোগাযোগ।

ভাঙ্গা উপ”জেলার বাসিন্দা লোকমান হোসেন বলেন, ‘এই এলাকাটি যে এভাবে বদলে যাবে তা এখান”কার কেউ কল্পনাই করতে পারেনি। ২০০৮ সালে শেখ হাসিনা ক্ষমতায়

আসার আগেও ভাঙ্গা ছিল চায়ের দোকানে ঠাসা শুধু একটি বাস স্টপেজ। ক্ষম”তায় এসে নির্মাণ করেন ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক। এরপরই মোড়টির গুরুত্ব বাড়তে থাকে।

এখন এই জায়গাটি দেখে বিশ্বাসই হতে চায় না এটি আমা’দের সেই ভাঙ্গা। মনে হয় ইউরোপ-আমেরি”কার কোনো জায়গা। এখন দূর-দূরান্ত থেকে মানুষ আসছে মোড়টির সৌন্দর্য দেখতে।’

ভাঙ্গা উপজেলা শহর এখন দক্ষিণ-পশ্চিমা”ঞ্চলের ২১ জেলার প্রবেশদ্বার। এ প্রবেশদ্বার দিয়ে পশ্চিমে রাস্তা চলে গেছে গোপালগঞ্জ হয়ে খুলনা-বেনাপোল পর্যন্ত। দক্ষিণে মাদারী”পুর,

বরিশাল হয়ে পটুয়া”খালীর সাগর’সৈকত কুয়াকাটা, উত্তরে ফরিদপুর শহর হয়ে পশ্চিমা”ঞ্চলের জেলা’গুলোতে। পূর্বে মাদারীপুর হয়ে পদ্মা সেতু পার হলেই ২০-২২ মিনিটে ঢাকা।

ঢাকার জুরাইন থেকে ফরিদ’পুরের ভাঙ্গা পর্যন্ত ৫৫ কিলোমিটার দীর্ঘ দেশের এই প্রথম এক্সপ্রেস’ওয়ে এশিয়ান হাইওয়ের করিডর ১-এর অংশ।’

এদিকে সড়ক বিভাগের তথ্যমতে, এক্সপ্রেসও”য়েটি নির্মাণে খরচ হয়েছে ৬ হাজার ৮৯২ কোটি ২৮ লাখ টাকা। ২০১৬ সালে শুরু হওয়া এই বিপুল কর্মযজ্ঞে অর্থ জোগান”দাতা বাংলাদেশ সড়ক বিভাগ। বর্তমানে ও ভবিষ্যতে পদ্মা সেতু হওয়ার পর যাতে কোনো যানজট না লাগে সেই সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা থেকেই এমন আধুনিক নকশায় ভাঙ্গা মোড়টি নির্মাণ করা হয়েছে।

একটি এক্সপ্রেসওয়ে যে একটি দেশের অর্থ’নীতির আমূল বদলে দিতে পারে তার অন্যতম উদাহরণ দক্ষিণ কোরিয়া। তিন বছরের যুদ্ধে ধ্বংস”স্তূপে পরিণত হওয়া দক্ষিণ কোরিয়া

শুধু গিয়ংবু এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ করে স্বল্প সময়ে বিশ্বের বুকে শক্তিশালী অর্থনীতির দেশে হিসেবে আবি”র্ভূত হয়। মহা’সড়কটির সঙ্গে সংযুক্ত হয় দেশের ছোট-বড় অসংখ্য শহর। দেশজুড়ে গড়ে ওঠে হাজারো শিল্প-কারখানা।

তেমনি পদ্মা সেতুসহ ঢাকা-ভাঙ্গা এক্সপ্রেস’ওয়ের কারণে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে বিপুল অর্থনৈতিক কর্ম”’কান্ডের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। এরই মধ্যে গড়ে উঠতে শুরু করেছে বিভিন্ন শিল্প-কারখানা ও আবাসিক এলাকা।

About admin

Check Also

অন’লাইনে শুক্রাণু কিনে ‘ই-বেবি’ জন্ম দিলেন নারী

দ্বিতীয় সন্তান নিতে আগ্রহী হন এক ব্রিটিশ নারী। কিন্তু ৩৩ বছর বয়সী স্টেফনি টেলর নতুন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *